Logo
শিরোনাম :
২৮ হাজার ইয়াবাসহ র‌্যাবের হাতে ধরা বাসের সুপারভাইজার ইঁদুর-সাপ খাচ্ছে মিয়ানমারের বাসিন্দারা সীতাকুণ্ডে অপহরণের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যুবক উদ্ধার, গ্রেপ্তার ১ কুতুবদিয়া উত্তর ধূরুং আল-নূর একতা সংঘের নির্বাচন সম্পন্ন বান্দরবানে মন্ডপে মন্ডপে চলছে দুর্গাপূজা পার্বত্য মন্ত্রী পরিদর্শন করলেন পূজা মন্ডপ পেকুয়ায় মারপিটের ঘটনায় আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা, এলাকায় বিক্ষোভ পোকখালী ইউনিয়ন ও হাইস্কুল শাখা ছাত্রলীগ কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা ঈদগাঁও মেহেরঘোনা সোস্যাল এসোসিয়েশনের উদ্যোগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ও চিকিৎসা সেবা রাজাপালং ইউনিয়ন ১ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সম্মেলন সম্পন্ন নাটোরে পরিষ্কার পরিছন্নতা কর্মসূচি’র উদ্বোধন

মেজর সিনহা হত্যায় প্রধান আসামি লিয়াকতের দায় স্বীকার

কক্সবাজার প্রতিনিধি।  / ৩৯ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ৩০ আগস্ট, ২০২০

 

কক্সবাজারের টেকনাফে সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা রাশেদ খান হত্যা মামলায় দোষ স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলী। তিনি মামলাটির প্রধান আসামি। তার গুলিতেই সিনহা নিহত হন বলে অভিযোগ রয়েছে।
র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, রোরবার (৩০ আগস্ট) বেলা পৌনে ১২টার দিকে তাকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ’র আদালতে জবানবন্দি দেয়ার জন্য তোলা হয়। জবানবন্দি শেষে তাকে বিকাল সাড়ে ৪ টায় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের সিনিয়র এএসপি খায়রুল ইসলাম জানান, দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিতেই লিয়াকতকে আজ রোববার আদালতে তোলা হয়। আদালতের কাছে পুলিশের এই কর্মকর্তা সত্যটাই তুলে ধরেছেন বলে আশা প্রকাশ করেন তদন্ত কর্মকর্তা।
এর আগে গত ২৬ আগস্ট আলোচিত এই মামলায় ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন অন্যতম আসামি আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্য কনস্টেবল আব্দুল্লাহ। লিয়াকত আলীসহ মামলাটিতে দুই আসামি দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দিলেন।
গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের মারিশবনিয়া পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ফেরার পথে শামলাপুর এপিবিএনের তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান। গত ৫ আগস্ট এ ঘটনায় কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হত্যা মামলা করেন সিনহা মো. রাশেদ খানের বড় বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস। এতে টেকনাফ থানার বরখাস্তকৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ পুলিশের নয়জনকে আসামি করা হয়।http://dailycoxnews.com
এই মামলায় এখন পর্যন্ত পুলিশের সাতজন, এপিবিএনের তিনজন এবং স্থানীয় তিনজন বাসিন্দা (পুলিশের মামলার সাক্ষী) গ্রেপ্তার হয়েছেন। ১৩ আসামির সবাই কারাগারে আছেন। দফায় দফায় তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‌্যাব। আদালতের নির্দেশে র‌্যাব মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর