Logo

রোহিঙ্গা তরুণীসহ এনজিও কর্মী উধাও

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ / ৭১ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

রোহিঙ্গা রমনীদের সঙ্গে স্থানীয়দের বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া সরকারীভাবে নিষেধ রয়েছে। আশ্রয় শিবিরে চাকরিরত কিছু এনজিও কর্মীর প্রেম-ভালবাসা দেখে রোহিঙ্গা যুবতি-কিশোরীরাও প্রেমে যেন পিছিয়ে নেই। এনজিওতে চাকরি করে এক শ্রেণীর যুবক-যুবতি বেপরোয়া চলাফেরা করছে। এতে স্থানীয় সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ এসব দেখেও প্রতিবাদ করার সাহস পাচ্ছেনা। সরকারী নিষেধ উপেক্ষা করে এনজিওকর্মী শফিউল্লাহ এক রোহিঙ্গা ললনাকে নিয়ে উধাও হয়ে গেছে।

জানা যায়, এমনিতে রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে না যেতে বিভিন্ন ফঁন্দি করছে। এদেশে স্থায়ী হতে স্থানীয়দের সঙ্গে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে থাকতে মরিয়া রোহিঙ্গারা। আশ্রয় ক্যাম্প থেকে অভিভাবকরা গোপনে একাধিক রোহিঙ্গা যুবতি-কিশোরীকে তুলে দেয়া হয়েছে স্থানীয়দের হাতে। আইনী বাধা ও এনজিও সংস্থার বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে শেষ পর্যন্ত এক রোহিঙ্গা তরুণী নিয়ে উধাও হয়ে যাবার ঘটনায় ক্যাম্পজুড়ে মূখরোচক আলোচনার যেন শেষ নেই। প্রেমের টানে পালিয়ে যাওয়া তরুণী উখিয়ার বালুখালী ক্যাম্প-৮ এর ব্লক-বি-৩৩ নং ক্যাম্পে আশ্রিত রোহিঙ্গা তরুণি মিয়ানমারের মংডুর বাসিন্দা।

উখিয়া থেকে সংবাদদাতা জানিয়েছেন, ওই রোহিঙ্গা তরুণীর পিতা জাহেদ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, বালুখালী ক্যাম্পে চাকরির সুবাদে শফিউল্লাহ আমার মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। আমার মেয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় পানি আনতে বের হলে ফুসলিয়ে শফি উল্লাহ নিয়ে যায়। এখন যোগাযোগও করছেনা। কোথাও খোঁজ না পেয়ে শফিউল্লাহর মোবাইলে কল করে কথা হয় আমার মেয়ে জয়নব বেগমের সঙ্গে। বর্তমানে ঐ মোবাইল ফোনটি বন্ধ রয়েছে। জাহেদ হোসেন তার মেয়েকে উদ্ধারের দাবী জানিয়েছেন।

সূত্র,জনকণ্ঠ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর