Logo
শিরোনাম :
কুতুবদিয়ার সন্তান কেন্দ্রীয় মৎস্যজীবী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত চাঁপাইনবাবগঞ্জে ‘কমিউনিটি পুলিশিং ডে’ উদযাপন শিবগঞ্জে প্রশাসনের অভিযান: ১৬ লাখ টাকার অবৈধ মোবাইল জব্দ মহানবী (সা.) এর অবমাননা, প্রতিবাদে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মানববন্ধন ঈদগাঁওতে সেচ্ছাসেবী সংগঠক রানার উপর হামলা : সুষ্ট বিচার দাবী কক্সবাজারের কলাতলী টিএন্ডটি পাহাড়ে বসতবাড়ী উচ্ছেদে গুলিবর্ষণ, ৩ সাংবাদিক আহত কক্সবাজার সদর যুবলীগের বর্ধিত সভায়…. জালালাবাদ-পোকখালী-ইসলামাবাদ-পিএমখালী যুবলীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষনা বান্দরবানে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান সাংবাদিকতার যোগ‍্যতা সংক্রান্ত আইনের খসড়া সরকারের কাছে পাঠানো হয়েছে টেকনাফে হোয়াইক্যং হাইওয়ে থানায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২০ পালিত ধর্ষণের শিকার এক নারীর গল্প!

আচমকা ঝড়ে লন্ড-ভন্ড অস্ট্রেলিয়া

ক্রীড়া ডেস্ক / ৫৪ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বোলাররা নিজেদের কাজটা ঠিকঠাক করে দেন। প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের টুটি চেপে ধরে তাদের কম রানেই আটকে রাখেন। নিজেদের ইনিংসের শুরুটাও হয় আশা জাগানিয়া। কিন্তু আচমকা ঝড়ে লন্ড-ভন্ড হয়ে যায় সবকিছু। তাই সহজ ম্যাচটাকেই শেষ পর্যন্ত কঠিন বানিয়ে ২৪ রানে হারে অস্ট্রেলিয়া।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড। মাত্র ২৯ রানেই ফেরেন দুই ওপেনার জনি বেয়ারস্টো এবং জেসন রয়। এরপর জো রুট এবং ইয়ন মরগানের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে স্বাগতিকরা। এই দুজন মিলে স্কোর বোর্ডে যোগ করেন মূল্যবান ৬১ রান। ভালো খেলতে থাকা দুই ইংলিশকেই ফেরান লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা।

এরপর জস বাটলার, স্যাম বিলিংসা নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার না করতে পারায় দেড়শ রানের মধ্যেই ৮ উইকেট হারিয়ে বসে ইংল্যান্ড। ভুগতে থাকা দলকে এ যাত্রায় আশার আলো দেখান আদিল রশিদ এবং টম কারান। দুজনে মিলে গড়েন ৭৬ রানের ইনিংস। তাতেই ২৩১ রানের পুঁজি পায় গতবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। কারানের ৩৭ এর পাশাপাশি রশিদের ব্যাট থেকে আসে ৩৫ রান।

২৩২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ভালো করতে পারেনি ডেভিড ওয়ার্নার, মার্কাস স্টয়নিসরা। দলীয় ৩৭ রানেই সাজঘরে ফেরেন তারা। কিন্তু অ্যারন ফিঞ্চ এবং মার্নাস ল্যাবুশানের জুটি দলকে সঠিক পথেই রাখে। তৃতীয় উইকেটে এই দুইজনে করেন ১০৭ রান। কিন্তু এরপরের হঠাৎ ঝড়ে বেসামাল হয়ে যায় অজিরা। ২ উইকেটে ১৪৪ থেকে মাত্র কিছুক্ষণের ব্যবধানেই টপাটপ ৪ উইকেট হারিয়ে বসে তারা।

একে একে ফিরে যান ল্যাবুশান, মিচেল মার্শ, ফিঞ্চ, গ্ল্যান ম্যাক্সওয়েলরা। এরপর এ্যালেক্স ক্যারি, প্যাট কামিন্সরা চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। রান রেটের সাথে পাল্লা দিতে গিয়ে জাম্পা, জস হ্যাজেলউডরা আউট হলে ২০৭ রানেই থামে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর