Logo
শিরোনাম :
পাউরুটি কিনে দিয়ে ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা মুক্তি চাইলেন ধর্ষিতা, কারাফটকে বিয়ের নির্দেশ কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ৩৬৫ জনের নমুনা টেস্টে ৪৬ জন করোনা পজেটিভ শারদীয় দূর্গাপুজা উপলক্ষে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের যুবলীগ সভাপতি ছৈয়দুল বশরের শুভেচ্ছা সকল অপশ‌ক্তি‌কে ক‌ঠোর হা‌তে দমন কর‌ছেন শেখ হা‌সিনা : রেজাউল ক‌রিম চৌধুরী চাচিকে ধর্ষণ: যুবলীগ নেতার ৪ দিনের রিমান্ড চাঁপাই নবাবগন্জের গোমস্তাপুর অটোর ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু শিক্ষকের মৃত্যুে নয়াবাজার উচ্চ বিদ্যালয় এসএসসি ২০১৮ ব্যাচের শোক প্রকাশ ঈদগাঁওতে ছাত্রলীগের সভায় বক্তারা…. ঐক্যবদ্ব থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার আহবান প্রশিক্ষণ ও লাইসেন্সবিহীন কোন গাড়ি চালক সড়কে থাকবে না

বিতর্কিত ‘মায়াকুমারী’ ঋতুপর্ণা

বিনোদন ডেস্ক : / ৪৮ বার
আপডেট সময় : বুধবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

চল্লিশের দশকের দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী মায়াকুমারী। ডাকসাইটের এই নায়িকার প্রেমে পড়েছিলেন বিখ্যাত অভিনেতা-পরিচালক কানন কুমার। কিন্তু মায়াকুমারী তখন শীতল ভট্টাচার্যের স্ত্রী। আর এতেই তৈরি হয় যত জটিলতা।

জানা যায়, মায়াকুমারী ও কাননকুমারের প্রেমের সম্পর্ক তৎকালীন সমাজ ভালোভাবে গ্রহণ করেনি। কোনো একটি সিনেমায় নায়কের সঙ্গে চুম্বনের দৃশ্যে অভিনয় ও খোলা পিঠের কারণে প্রিমিয়ারে নায়িকাকে থুতু ছিটিয়েছিলেন উপস্থিত দর্শক।

মায়াকুমারী ও কানন কুমারের এই কাহিনি নিয়ে কলকাতার জনপ্রিয় নির্মাতা অরিন্দম শীল নির্মাণ করেছেন ‘মায়াকুমারী’ নামে চলচ্চিত্র। এতে মায়াকুমারীর চরিত্র রূপায়ন করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। কাননকুমার ও তার নাতি আহিরের চরিত্রে অভিনয় করেছেন আবির চ্যাটার্জি। শীতল ভট্টাচার্যের চরিত্রে দেখা যাবে রজতাভ দত্তকে।

অভিনয় ক্যারিয়ারে অনেক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন আবির। কিন্তু এই চলচ্চিত্রের মতো এতটা বেশ বদল কখনো করতে হয়নি তাকে। আর প্রতিটি লুকেই রয়েছে খানিক তারতম্য। মায়াকুমারীর লুকে ঋতুপর্ণা যথার্থ। কখনো খোলা পিঠে কাঁখে কলসী, আবার কখনো বা সাবেকি গয়নায় অনবদ্য এই নায়িকা। চলচ্চিত্রটির মধ্যে আরো একটি চলচ্চিত্র, মিশে গেছে রিল আর রিয়েল লাইফ। তাই এত চরিত্র আর লুকের ঘনঘটা।

এছাড়াও চলচ্চিত্রটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন—ইন্দ্রাশিস রায়, ফলক রশিদ, অর্ণ মুখার্জি, সৌরসেনী প্রমুখ।

আগামী অক্টোবরে কলকাতায় সিনেমা হল খোলার সম্ভাবনা রয়েছে। আর পূজা উপলক্ষে এটি মুক্তি পেতে পারে বলে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে।

চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করছেন নীল রতন দত্ত। মুক্তি প্রসঙ্গে তিনি বলেন—হল খুললে যদি মানুষ হলমুখী হন তবে যত দ্রুত সম্ভব হলেই সিনেমাটি মুক্তি দেব। হাজার হোক, বড় পর্দার কথা মাথায় রেখেই চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর