Logo
শিরোনাম :
চাঁপাই নবাবগন্জের ভোলাহাটে বর বদল তুমব্রু দুর্গা মন্দির পরিচালনা কমিটি কর্তৃক সংবর্ধিত নব-নির্বাচিত ইউপি সদস‌্য ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ১০ মাদক সেবী আটক টেকনাফে র‍্যাবের পৃথক অভিযানে কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার উঠে গেছে সংকেত, কক্সবাজার ফিরতে পারেন সেন্টমার্টিনে আটকা পর্যটকরা চকরিয়া থানায় হঠাৎ পরিদর্শনে চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন ফাতির পায়ে এল ক্লাসিকোতে বার্সার ‘৪০০’ ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের বর্ণাঢ্য জীবন ছাত্রীকে ‘ধর্ষণ’, পালিয়েও রক্ষা হলো না মাদ্রাসা সুপারের ফেসবুকে মাদ্রাসাছাত্রীর ‘বিকৃত ছবি’ প্রকাশঃআটক-২

বাঁকখালী নদীতে অভিযান ৮টি ড্রেজার মেশিন বিনষ্ট ৪ জনকে কারাদন্ড

কক্সবাজার প্রতিনিধি।  / ২৩ বার
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কক্সবাজার সদর এলাকাস্থ বাঁকখালী নদীতে বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে দিনব্যাপী সাঁড়াশি অভিযান পরিচালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার  (ভূমি) শাহরিয়ার মুক্তারের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়। অভিযানে ৮ টি ড্রেজার মেশিন বিনষ্ট ও ৪ জনকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।
জানা যায়, হঠাৎ করে বাঁকখালী নদীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বেড়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যার ফলে শহরের ৬ নং ঘাট হতে সদর উপজেলাধীন এলাকা  বাংলাবাজার ব্রিজ পর্যন্ত বাঁকখালী নদীতে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন এই প্রথম বারের মত ভিন্ন প্রক্রিয়ায় স্পিডবোট দিয়ে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করেন।
এতে সন্ধান মিলে বাঁকখালী নদীর তীরস্থ ৮টি পয়েন্টে অবৈধ বালু উত্তোলনের ড্রজার মেশিন। সেগুলো হলো, বড়ুয়া পাড়ায় দুইটি, পিএমখালী পয়েন্টে ২ টি বাংলা বাজার ব্রিজের আশপাশের ৪টি।
স্থানীয়রা জানান, বাংলা বাজার ব্রিজের পাশে আব্দু শুক্কুরের ছেলে নুরুল আমিন ও তার ভাই নুরুল আলম, পিএমখালীর সিরাজুল হক, অন্যতম বালুখেকো এরশাদুল আলম, লিংরোড এলাকার জিয়া ও মুবিন, চাঁন্দেরপাড়ার আলী আকবরের ছেলে রিফাতুল করিম, আব্দুল মাস্টার  ছেলে সালাউদ্দিন, নুর আহম্মদের ছেলে আব্দু সালামসহ ৩০ জনের একটি সিন্ডিকেট বাঁকখালী নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।
এবিষয়ে পরিবেশবাদী সংগঠন “এনভায়রনমেন্ট পিপল” এর প্রধান নির্বাহি রাশেদুল মজিদ বলেন, এইসব বালু উত্তোলনের  বিরুদ্ধে বারবার প্রশাসনের অভিযান চালালেও থেমে থাকে না তাদের বালু উত্তোলন। বালু উত্তোলনের কারণে নদীর তীরও ভেঙে যাচ্ছে বিভিন্ন এলাকায় পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে তাদের বিরুদ্ধে মামলা  বা আইনি ব্যবস্থা নেয়া হয়নি কোন সময়।
দৃষ্টি আর্কষণ করা হলে, সহকারী কমিশনার ভূমি শাহরিয়ার মুক্তার মুক্তার বলেন, বাঁকখালী নদীতে স্পিডবোট দিয়ে ড্রেজার মেশিনের মাধ্যমে বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে অভিযান করা হয়েছে। এর আগের অভিযানে ২/১টি করে ড্রেজার মেশিন বিনষ্ট করা হলেও এইবারের অভিযানে ৮টি ড্রেজার মেশিন বিনষ্ট ও ৪ জনকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। পরিবেশ রক্ষায় এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর