Logo
শিরোনাম :
গোদাগাড়ীর পিরিজপুরে জাগ্রত কালি মন্দির প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হলো গর্জনিয়ায় এক দিন মজুরের মৃত্যু !! চাঁপাই নবাবগঞ্জে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজা শেষ রামুতে হরিনের মাংস বিক্রি,ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা আদায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে অসুস্থ পশু জবাই করে মাংস বিক্রি, আতঙ্কিত শহরবাসী চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভারতীয় জাল রুপিসহ গ্রেফতার ৪ ছোট মহেশখালী ডেইলপাড়ায় চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র বলৎকার, গ্রেপ্তার ১, থানায় মামলা রোহিঙ্গাদের হাতে জাতীয় পরিচয় পত্র: জড়িতদের বিরুদ্ধে চলছে তদন্ত অশ্রুসিক্ত নয়নে দীর্ঘতম সৈকতে প্রতীমা বির্সজন বিরূপ প্রভাব পরিবেশে উখিয়ায় অপ্রতিরোধ্য বালি বাণিজ্য

টেকনাফ মহাসড়ক উন্নয়নে মহা অনিয়ম,দেখার কেউ নেই!

গফুর মিয়া চৌধুরী / ৬১ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

উখিয়া সদরে প্রধান সড়কের চলমান কাজ চলছে! হাতেগণা ৪/৫ জন লোক মনে হয়ে বিলে জমিতে চাষাবাদের কাজ করছে এমনটাই বরাবর। অথচ মহা সড়কের চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ প্রায় ৫শত কোটি টাকা ব্যয়ে হচ্ছে। কাজের গতি খুবই দুর্বল।

বার বার কচ্ছপগতিতেই চলমান কাজ হচ্ছে। দেখার কেউই নেই। সড়ক ও জনপথ বিভাগের কোন প্রকৌশলী বা দেখভালো নিয়োজিত কারো দেখা মিলছে না! কাজ চলছে ঢিলেঢালা ভাবে। আজ ২৫ সেপ্টেম্বর বিকেল ৩টায় উখিয়া সদরের প্রধান সড়কের কাজের দৃশ্যের ছবি দেখলেই বুঝা যায় কিভাবে করছে কাজ।
গতি কয়দিন ধরে সমানে কখনও হালকা, কখনও মাঝারি বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টিতে সর্বত্র পানি,কাদা। কক্সবাজার – টেকনাফ মহাসড়কের উখিয়া সদরে টিকাদারের মিস্ত্রী কাম কথিত প্রকৌশলীর হাতে গোনা কয়েকজন শ্রমিক দিয়ে চালানো হচ্ছে সড়কের আইসিসি ঢালাইয়ের কাজ। পানি,ময়লা ও কাদার মধ্যে ঢালা হচ্ছে আইসিসি ঢালাই। সওজের দায়িত্বশীল কাউকে দেখা যায়নি। সাধারণ মানুষের প্রশ্ন শত কোটি টাকার কাজে প্রকাশ্যে চলছে লুটপাট।
স্থানীয় দোকানদারদের কেউ কেউ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, কিছু বলতে গেলেই চাঁদাবাজিসহ নানা হয়রানির শিকার হতে হবে, তাই সবাই দেখলেও কেউ কিছু বলছে না। পথচারীসহ সাধারণ মানুষের উদ্বেগ মহা অনিয়মের মাধ্যমে মহাসড়ক উন্নয়নের চলমান কাজের স্থায়ীত্ব নিয়ে।
উখিয়া সদর ষ্টেশনের এই যদি হয় অবস্হা! সড়কটির অবস্থা দেখলে মনে হয় ময়লা আর্বজনার স্থান। কক্সবাজার – টেকনাফ মহাসড়কের উন্নয়ন কাজ চলছে প্রায় দুই বছর ধরে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃপক্ষ সাইন বোর্ড লিখে দিয়েছে সড়কের উন্নয়ন কাজ চলছে। সাময়িক অসুবিধার জন্য দু:খিত। এখন প্রশ্ন উঠেছে,সাময়িক তো নয়। বছরের পর বছর সর্ব সাধারণের দুর্ভোগ কেন?

কক্সবাজারের সড়ক জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে জনগণের প্রশ্ন সাময়িক অসুবিধা কাকে বলে? জনগণ দুভোর্গ আর সহ্য করতে পারছে না। বিষয়টি নিয়ে গুরুত্বসহকারে নজর দিন। এদিকে উখিয়া সদরের প্রাণ কেন্দ্রে মহা সড়কে মহা মরণ ফাঁদ। সড়কের ভয়াবহতা চোখে না দেখলেেই বুঝা যাবে না। গাড়ী চলাচল, জনচলাচল চরম অসাধ্য হয়েই পড়েছে। মনে হয় এসব জনদুর্ভোগ নিয়ে বাদ প্রতিবাদ এবং কথা বলার জন্য এদেশে কেউ নেই।
বিকাশ বলেন, রাতে নির্বাচিত বলেন, বিনা ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা এসব দেখে ও না দেখার ভান করে রয়েছেন। এসব ভাগ্যবান বা উড়ে এসে জুড়ে বসা জনপ্রতিনিধিরা অথচ সড়কের দুর্গতি নিয়ে সংশ্লিষ্ট কতৃর্পক্ষের সাথে কথাই বলার গরজ মনে করে না।
এদিকে অভিযোগ উঠেছে,সড়কের উন্নয়ন কাজের জনৈক ঠিকাদার নাকি নিজেকে সড়ক ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামীলীগের সেক্রটারীর ভাগিনা পরিচয় দিয়ে প্রভাব খাঁটিয়ে সড়কের উন্নয়ন কাজে ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে কচ্ছগতিতে কাজ চালাচ্ছে। লোকে মুখে ছড়িয়ে পড়ছে এ ঠিকাদার ওবায়দুল কাদের এর নাম ব্যবহার করেই সর্বত্র প্রভাব বিস্তার করছে। জনগণের প্রশ্ন সে আসলে কি ওবায়দুল কাদের এর ভাগিনা? নাকি নাম ব্যবহার করে ফায়দা লুটছে? এ ব্যাপারে কক্সবাজারের সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মহোদয় একটু দৃ্ষ্টি দিবেন কি?


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর