Logo
শিরোনাম :
শান্তিপূর্ণ ভাবে রাজাপালং ৯নং ওয়ার্ডের নির্বাচন সম্পন্ন পিতার আসনে ছেলে হেলাল উদ্দিন বিজয়ী  চকরিয়ায় কীটনাশক পানে পলিটেকনিক ছাত্রের আত্মহত্যা ব্যবসায়ীদের ক্ষোভ….. ঈদগাঁও বাজারে মলকান্ড : জনদূূর্ভোগ চরমে কক্সবাজারে নৌকা ভ্রমণে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন দুই বন্ধু রামুতে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী ও বাঁক প্রতিবন্ধী নারী ধর্ষণের শিকার টেকনাফে অস্ত্র ও ইয়াবাসহ আটক ১ টেকনাফে ১০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ধ্বংস দুর্নীতির মামলায় অধ্যক্ষ আব্দুর রহমানকে জেল হাজতে পাঠিয়েছে আদালত ঢাকা- নওগাঁ উপ-নির্বাচনের ফলাফল প্রত‌্যাখান করে বান্দরবান জেলা বিএনপির প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ পেকুয়ায় বড় ভাই ছোট ভাইকে কামড়িয়ে আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন

সেনাবাহিনীর দেওয়া কাটাঁতারের বেড়া টপকে দেদারে পার হচ্চে রোহিঙ্গারা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ / ৬০ বার
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত বিশাল রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দিয়ে সরকার যাবতীয় সুযোগ সুবিধা দিলেও তাতে পোষাচ্ছেনা রোহিঙ্গাদের। দেশে স্থায়ীভাবে বসবাস ও বিদেশে যেতে ক্যাম্প ছেড়ে দেদারে পালাচ্ছে রোহিঙ্গারা। নিবন্ধনের আওতায় না আসায় পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সনাক্ত করা সম্ভব হচ্ছে না প্রশাসনের।
কুতুপালং রেজিস্টার্ড ক্যাম্পের চেয়ারম্যান হাফেজ মাওলানা জালাল আহমদ বলেন, নতুন বিভিন্ন ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারাও নিবন্ধনের আওতায় আসেনি। তাদের একটি অংশ ক্যাম্প ছেড়ে বিভিন্ন এলাকায় আশ্রয় নিচ্ছে। ক্যাম্প থেকে কোন রোহিঙ্গা পরিবারগুলো পালাচ্ছে এমন তথ্য নিতে গেলেও ক্যাম্প প্রশাসন ব্যর্থ হবে। কারণ তারা তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গা নয়।
ক্যাম্প কমিটির সেক্রেটারি মোহাম্মদ নুর বলেন, ক্যাম্পে দালাল চক্র সক্রিয়। তারা বিভিন্ন প্রলোভনে রোহিঙ্গাদের ক্যাম্পের বাহিরে নিয়ে যাচ্ছে। ক্যাম্প-২ এর হেড মাঝি জকরিয়া ও আবু তাহের মাঝি জানান, অনেক পরিবারকে ক্যাম্পে দেখা যাচ্ছে না। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তারা মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে দালালের খপ্পরে পড়ে ক্যাম্প ছেড়ে পালিয়েছে। কেউ কেউ স্থায়ীভাবে বসবাসের কারণে বিভিন্ন এলাকায় ভাসমান পরিবার হিসেবে আশ্রয় নিয়েছে। আবার অনেকেই সমুদ্রে মাছ ধরার নৌকায় চাকরি করার সুবাদে উপকূলীয় এলাকায় আশ্রয় নিয়েছে।
ক্যাম্প ইনচার্জ মো. খলিলুর রহমান বলেন,রেজিস্ট্রার্ড ক্যাম্পে আশ্রিত রোহিঙ্গারা ক্যাম্প প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাই ক্যাম্পে বাইরে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে তার জানার কথা নয়। তবে ক্যাম্প থেকে চলে যাওয়ার সময় ক্যাম্প পুলিশের হাতে ধরা পড়লে ওইসব রোহিঙ্গাদের পুনরায় পূর্ব নির্ধারিত স্থানে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।
উখিয়া থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জ আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, তড়িঘড়ি করে সবেমাত্র দায়িত্ব নিয়েছি। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সাংবাদিকসহ সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর