Logo
শিরোনাম :
সীতকুণ্ডে ঝর্ণায় নেমে পর্যটকের মর্মান্তিক মৃত্যু দোকানের কর্মচারি থেকে কোটিপতি মানবিক কাজের সম্মাননা স্বারক পেলেন রামু ব্লাড ডোনার্স সোসাইটি ফ্রান্সে হযরত মুহাম্মদ (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করা প্রতিবাদে টেকনাফ সদর ইউনিয়নে বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ ইসলামাবাদের বোয়ালখালীর জনসাধারনের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল ঈদগাঁওতে শেখ রাসেল স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টে হাটহাজারীকে পরাজিত করে জয়ী হলো স্বাগতিক ঈদগাঁও ইসলামাবাদে মনোমুগ্ধকর ছাদ কৃষি করে নজর কাটল জিকো দাশ ঈদগাঁও বাজারে চলাচল সড়কে বাঁধ দিয়ে ড্রেজার মেশিনের পাইপ : দেখার কেউ নেই সাংসদ কানিজ ফাতেমা মোস্তাকের বরাদ্দে………. ঈদগাঁও-ঈদগড় সড়কে ৪টি সোলার প্যানেল স্থাপন ঈদগাঁওতে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক শফির জানাযায় শোকার্ত মানুষের ঢল

থাইংখালীতে নতুন কাঁচা বাজার উদ্ধোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক,উখিয়া(কক্সবাজার)থেকে / ১১৩ বার
আপডেট সময় : বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালীতে স্থানীয় ভোক্তাদের দুঃখ লাঘবে কাচা বা
জার প্রতিষ্ঠায় ৫ শতক জায়গা দান করলেন থাইংখালীর ৩জন উদার মনের নারী।বিএস ৫০৭ নং দাগের আন্দর থেকে উক্ত পরিমাণ জায়গা দানপত্র করে দিলেন পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালীর স্থানীয় জমিদার পরিবার খ্যাত মৌঃ মোক্তারুল জলিলের পরিবারে শহীদা বেগম,হালিমা বেগম ও নুরুচ্ছাফা বেগম।স্থানীয় ব্যবসায়ী সুত্রে জানা গেছে, পালংখালী ইউপির থাইংখালী এলাকাটি জনবহুল।গত রোহিঙ্গা ঢলের পর থেকে বিভিন্ন এলাকার এনজিওকর্মীরা থাইংখালীতে ভাড়া বাসায় অবস্থান করে আসছে।জায়গা সংকুলানের কারণে কাঁচা মাছ, তরিতরকারি, তাজা শাক সবজির সহজলভ্য ছিলনা।থাইংখালীর ভোক্তাদের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে উখিয়া উপজেলা প্রশাসনের উদোগে একটি কাঁচা বাজার প্রতিষ্ঠার সম্ভাব্যতাও জানানো হয়।এসংক্রান্তে

দুটি পক্ষ দুটি স্থানের প্রস্তাবনা করলেও প্রকৃত পক্ষে উপজেলা প্রশাসন কোন জায়গা নির্ধারণ করেনি।কিন্তু স্থানীয় তিন মহিলা স্বপ্রনোদিত হয়ে ৫ শতক জমি দান করে কাঁচা বাজার প্রতিষ্ঠা করে যথারীতি চালু হয়ে গেছে।সরেজমিনে দেখা যায়,এনজিওকর্মী,স্থানীয় জনসাধারণ কাঁচা বাজারে বিকিকিনিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন।তাঁরা
দাবী করছেন থাইংখালীর ঐতিহ্যবাহী বাজারের অংশ হিসেবে এটি যথাযথ স্থান। উক্ত কাঁচা বাজারের ব্যবসায়ী মোক্তারুল জলিল,আবুল কাসেম,রবিউল আলম,মোঃ আলম তাঁরা তরিতরকারি- সবজি ব্যবসায়ী।

একেকজনের দৈনিক বেচাকেনা করেন ৮ থেকে ১০ হাজার টাকার। বেশ ভালো চলছে।মাছ বাজারের ব্যবসায়ী রিয়াজ উদ্দিন,মাহমদুল হক,মোঃ বকতেয়ার আমির সোলতান জানান,ব্যবসা মুটামুটি ভাল চলছে।এটি ভালো এবং নিরাপদ স্থান।তবে স্থানীয় সুত্রে প্রকাশ বাজারটি এখনো কোন অনুমোদন মেলেনি।এটি নিয়ে প্রশাসনিক ঝামেলা রয়েছে বলে স্থানীয় ইউপির চেয়ারম্যান এম. গফুর উদ্দিন জানান।তিনি আরো বলেন,বাজার স্থাপন নিয়ে জায়গার জন্য মামলা মোকাদ্দমা রয়েছে।যেটি উপজেলা প্রশাসন জানে।ইউপির রেজুলেশনও রয়েছে।এ সংক্রান্ত কিছু কাগজপত্র প্রদর্শন করেন।এ বিষয়টি কে সেলিম নামক এক ব্যক্তি দোকান মালিক সমিতির পরিচয়ে নতুন কাঁচা বাজার সরকার চাইলে ইজারা দিয়ে রাজস্ব আদায় করুক,আমি তা চাই।স্থানীয় ভোক্তাদের সুবিধার্থে উক্ত জমি দান করা হয়েছে।

এদিকে বাজার টি আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন করা হয়।৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরে ফিতা কেটে বাজারের উদ্ধোধন কালে উপস্থিত ছিলেন,কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলী আহমদ,পালংখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ফজল কাদের ভুট্রো, আওয়ামীলীগ নেতা আবুল মঞ্জুর,দানু মিয়া সহ স্থানীয়রা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর