Logo
শিরোনাম :
ইসলামাবাদে মনোমুগ্ধকর ছাদ কৃষি করে নজর কাটল জিকো দাশ ঈদগাঁও বাজারে চলাচল সড়কে বাঁধ দিয়ে ড্রেজার মেশিনের পাইপ : দেখার কেউ নেই সাংসদ কানিজ ফাতেমা মোস্তাকের বরাদ্দে………. ঈদগাঁও-ঈদগড় সড়কে ৪টি সোলার প্যানেল স্থাপন ঈদগাঁওতে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক শফির জানাযায় শোকার্ত মানুষের ঢল সৎ মেয়েকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ বাবার বিরুদ্ধে মানিকগঞ্জে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে স্কুল শিক্ষক গ্রেপ্তার রামু খুনিয়াপালং অর্ধকোটি টাকার ইয়াবাসহ যুবক আটক রংপুরে ছাত্রীকে গণধর্ষণ: এএসআই রাহেনুলকে কারাগারে প্রেরণ শুক্রবার থেকে পাকিস্তানের মাটিতে ফিরছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নারীমুক্তির প্রাণপুরুষ হজরত মুহাম্মদ (সা.)

চাঁপাইনবাবগঞ্জে এবার মোবাইল-টাকার লোভ দেখিয়ে শিশু ধর্ষণ, ৪০ হাজার টাকায় রফা

মোঃ মেশবাহুল হক চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি / ৬৫ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ৯ অক্টোবর, ২০২০

এবার চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে মোবাইল, টাকা ও নিজের ছেলের সাথে বিয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এক শিশুকে ধর্ষণের পর ৪০ হাজার টাকায় রফা করার অভিযোগ উঠেছে।
অভিযুক্ত ব্যক্তি ৫ সন্তানের জনক ও সেচ প্রকল্পের ড্রাইভার আনারুল। সে গোমস্তাপুর উপজেলার পাবর্তীপুর ইউনিয়নের দায়েমপুর-হঠাৎপাড়া গ্রামের ঝাটু কোলার ছেলে আনারুল ইসলাম (৫৫)।
স্থানীয়রা জানায়, মোবাইল, টাকা ও নিজের ছেলের সাথে বিয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর ১৩ বছর বয়সী ৪র্থ শ্রেণীর এক শিশুকে ধর্ষনের পর পারিবারিকভাবে স্থানীয় সালিশের মাধ্যমে ৪০ হাজার টাকায় সমাধান করা হয়।
অভিযুক্ত ব্যক্তি ঘটনার দিন দুপুরে শিশুটি ঘাস কাটতে গেলে বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে পাশের আমবাগানে ধর্ষণ করে আনারুল ইসলাম। এরপর ৬ অক্টোবর সকালে অভিযুক্ত ব্যক্তির আত্মীয় ও ধান-চাল ব্যবসায়ী আজহারের ছেলে আমিনুল ইসলাম স্থানীয় সালিশে এর সমাধান করে দেন
ধর্ষনের শিকার শিশুটি জানায়, ঘাস কাটতে গেলে আনারুল তাতে বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ করে এ সময় মেয়েটি চিৎকার করার চেষ্টা করলে মুখে গামছা বেঁধে দেয়। বিষয়টি কাউকে জানালে কেটে ফেলার হুমকিও দেয় সেই নরপিশাচ। হুমকি দেয় । মেয়েটি ভয়ে ভয়ে তার সাথে এমন আচরনের সত্যতা শিকার করে এ ঘটনার বিচার দাবী করে।
এদিকে পাবর্তীপুর ইউনিয়নের হঠাৎপাড়া গ্রামের ফারুকের ছেলে কারিম ও লুৎফর রহমানসহ আরো কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা জানায়, ৫ দিন আগে পাশের আমাবাগানে এমন ঘটনা হয়েছে বলে আমরা জানি। কিন্তু টাকার বিনিময়ে মেয়ের মা-বাবার সাথে সমাধান হওয়ায় এবং মেয়েটির পরিবার এ ব্যাপারে নিরব থাকায় এলাকাবাসী নি:শ্চুপ।
এদিকে শিশুটির মা জানান, আমার মেয়েকে ফুসলিয়ে বাগানে নিয়ে গিয়ে অন্যায় কাজ করেছে।পরে ধান-চাল ব্যবসায়ী আমিনুল মঙ্গলবার ৪০ হাজার টাকায় ধর্ষনের সালিশ করে দেন।আমরা বিচার মেনে নিয়েছি।
এ ব্যাপারে ধর্ষনের সালিশকারী ও ধান-চাল ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম এবং অভিযুক্ত ব্যক্তির সাথে সরাসরি ও মোবাইল ফোনে অনেকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে কথা বলতে পাবর্তীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. লিয়াকত আলী খানের যোগাযোগ করা হলে তারও মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।তার বাড়িতে যোগাযোগ করা হলে তিনি অসুস্থ এবং দেখা করতে পারবেননা বলে জানিয়ে দেয়া হয়। এদিকে এ ব্যাপারে গোমস্তাপুর থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) জসীম উদ্দীন জানান, এবিষয়ে এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর