Logo
শিরোনাম :
বিয়ের সিদ্ধান্তে ঘরছাড়া দুই তরুণী, অতঃপর.,, টেকনাফে এনজিও সংস্থার দখল থেকে খেলার মাঠ ফেরত চান শামলাপুরবাসী সংগঠনকে সুসংগঠিত করতে…. কক্সবাজার সদর যুবলীগের বর্ধিত সভা ৩০ অক্টোবর ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা বিএনপির দ্বি-বার্ষিকী সম্মেলন ও কাউন্সিল ৩০ অক্টোবর রাইখালীতে প্লাস্টিকের বস্তায় ২’শ লিটার মদ পাচারের সময় নারী মাদক বিক্রেতা আটক নির্বাচনের আগেই বান্দরবান পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড শুরু, প্রায় ৭৪ কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চলছে বান্দরবান পৌরসভা চাঁপাই নবাবগঞ্জের শিবগন্জে সিআইডি দেখে খেলতে গিয়ে গলায় ফাঁস লেগে প্রাণ গেল শিশুর ডিইউজে সভাপতি কুদ্দুস আফ্রাদের ওপর হামলায় বিএমএসএফের় তীব্র প্রতিবাদ চাঁপাই নবাবগন্জের শিবগঞ্জে ৫শ মিটার কারেন্ট জাল ধ্বংস টেকনাফ প্রেসক্লাব ভবন নির্মাণ কাজ উদ্বোধন

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত শিশুর মৃত্যু

ডেইলী উখিয়া নিউজ ডেস্ক : / ৪৩ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২০

সশস্ত্র রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোহিঙ্গা শিশু মারা গেছে।

মৃত শিশুর নাম জিয়াবুর রহমান (১৪)। সে উখিয়ার কুতুপালং নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরের ই ব্লকের মো. আরিফ উল্লাহর ছেলে।

কুতুপালং নিবন্ধিত রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরের রোহিঙ্গা কমিউনিটির নেতা (চেয়ারম্যান) হাফেজ জালাল আহমদ বলেন, ‘গত ৬ অক্টোবর রাত ৮টার দিকে বিবাদমান দুই রোহিঙ্গা গ্রুপের মধ্যে যে রক্তক্ষয়ী সহিংসতার ঘটনা ঘটেছিল সেদিন সন্ত্রাসীরা অপহরণ করে গোপন স্থানে আটকে নির্মম নির্যাতন চালায় শিশু জিয়াবুরের উপর। অপহরণের দুদিন পর গত ৮ অক্টোবর সন্ত্রাসীরা আহত অবস্থায় শিবিরের একটি সেতুর নীচে ফেলে যায় শিশুটিকে। ওইদিন রাতে তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ভোররাত ৩টায় সে মারা যায়।’

কুতুপালং রোহিঙ্গা নিবন্ধিত শিবিরের ক্যাম্প ইনচার্জ খলিলুর রহমান জিয়াবুর রহমানের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা শাহীন মোহাম্মদ আব্দুর রহমান নিশ্চিত করেছেন যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক রোহিঙ্গা শিশু মারা গেছে। তার মরদেহ ময়নাতদন্ত হবে কিনা, সে বিষয়ে এখনও পুলিশ কিছু জানায়নি বলে যোগ করেন এই চিকিৎসা কর্মকর্তা।

গত ৬ অক্টোবর রাতে কুতুপালং রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবিরে নিজেদের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই রোহিঙ্গা সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের মধ্যে সংঘটিত সহিংসতার ঘটনায় ঘটনাস্থলে একজন স্থানীয় বাংলাদেশি মাইক্রোবাস চালকসহ চার জন খুন হন। আহত হন অন্তত ২০ জন। এ ঘটনায় রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের হাতে অপহৃত বাংলাদেশি এক মাইক্রোবাস চালক গত বৃহস্পতিবার সন্ত্রাসীদের আস্তানা থেকে ছাড়া পান গুরুতর আহত অবস্থায়। তার নাম নুরুল বশর।

সূত্র, দ্য ডেইলী ষ্টার


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর