Logo
শিরোনাম :
চাঁপাইনবাগঞ্জের শিবগন্জে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ইসলামপুরে ফুটবল টূর্নামেন্টের ফাইনালে……. জালালাবাদ ও খুটাখালীকে যৌথ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা ফ্রান্সে বিশ্বনবীর ব্যঙ্গ চিত্র প্রকাশ, বিক্ষোভ ঈদগাঁওতে গোদাগাড়ীতে উপজেলার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী ও ছাত্র/ছাত্রীদের বাইসাইকেল শিক্ষাবৃত্তি ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সামগ্রী প্রদান গোদাগাড়ীতে পৌরসভা নির্বাচনে প্রথমবার মতো মহিলা প্রার্থী শাহনাজ আখতার ঈদগাঁওতে ডা: মোস্তাফা সরওয়ার সাদেকের পিতার মৃত্যু : বিভিন্ন মহলের শোক পেকুয়ায় চাঁদা না দেয়ায় প্রবাসীকে পিটিয়ে জখম, স্থাপনা নির্মানে বাধা অনলাইন গণমাধ্যমগুলোকে শিল্পে পরিণত করা উচিত বান্দরবানে ৬ কোটি টাকার ১১ টি প্রকল্প উদ্বোধন করলেন পার্বত্য মন্ত্রী গোদাগাড়ীর পিরিজপুরে জাগ্রত কালি মন্দির প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হলো

মহেশখালীতে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ,প্রেমিক গ্রেফতার

মহেশখালী প্রতিনিধি। / ৪২ বার
আপডেট সময় : বুধবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২০

কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলা বড় মহেশখালী ইউনিয়নে ঘটেছে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনা। প্রেমিকসহ তিনবন্ধু মিলে ধর্ষণ করে স্কুল ছাত্রীকে। এবং তা ভিড়িও ধারণ করে বলে জানাগেছে। গত ১১ অক্টোবর উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের দেবাঙ্গা পাড়া গ্রামে এ লোমহর্ষক ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় পুলিশ প্রেমিক এবাদুল্লাহকে আটক করেছে।
তবে ঘটনাটি একটি প্রভাবশালী মহল দামাচাপা দেওয়ার চেষ্ঠা ও চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে।
ধর্ষনের শিকার স্কুল ছাত্রীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বড় মহেশখালী ইউনিয়নের দেবাঙ্গা পাড়া গ্রামের ওই স্কুল ছাত্রী গুলগুলিয়া পাড়ার মোহাম্মদ আলী প্রকাশ নবাব মিস্ত্রির পুত্র ধৃত এবাদুল্লাহর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো।
এর অংশ হিসেবে গত ১১ অক্টোবর রাত সাড়ে ৯ টার দিকে প্রেমিক এবাদুল্লাহ ফোন করে ওই স্কুল ছাত্রীকে ঘর থেকে বের করে। সে বের হয়ে দেখে প্রেমিকের সাথে আরোও দুই বন্ধু রয়েছে। এক পর্যায়ে জোর করে প্রেমিকসহ তিনজনই ওই স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ এবং তা ভিড়িও ধারণ করে।
ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর বরাত দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য এরফান উল্লাহ বলেন, ধর্ষণের পরে ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রী পরিবারের লোকজনকে ফোন করে ধর্ষণ ও ভিড়িও ধারণের বিষয়টি জানায় ধর্ষকরা। ভিড়িও ধারণের কথাটি জানিয়ে মোটা অংঙ্কের চাঁদা দাবি করে ধর্ষকরা। টাকা না দিলে ভিড়িও টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। কিন্তু মেম্বার তাদের জন্য ফাঁদ পাতে। এর অংশ হিসেবে চাঁদা টাকার জন্য ১২ অক্টোবর রাতে বিলে আসে প্রেমিক এবাদুল্লাহ। এক পর্যায়ে মেম্বারসহ স্থানীয় লোকজন ধান ক্ষেতে ওৎপেতে থাকে এবং চাঁদার টাকা নিতে আসলে এবাদুল্লাহকে ধরে ফেলে।
পরে খবর পেয়ে মহেশখালী পুলিশ গিয়ে ধর্ষক এবাদুল্লাহকে থানায় নিয়ে আসে।
মহেশখালী থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) এমরানুল কবির প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল সকালে মহেশখালী উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবাদুল্লাহ ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। ওই মামলার জড়িত অপর দুই আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
মহেশখালী থানার পরিদর্শক এমরানুল কবির বলেন, স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ওই স্কুলছাত্রীতে গতকাল দুপুরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
মহেশখালী থানার ওসি আব্দুল হাই বলেন, এই ঘটনায় ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ওসি জানান, এই ঘটনায় জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতারে অভিযান জোরদার রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর