Logo
শিরোনাম :
আওয়ামীলীগে ঈদগাঁও থানা কমিটি স্বীকৃতির দাবী বৃহত্তর ঈদগাঁওর তিন ইউনিয়নে নতুন ঘর পেল ১১ পরিবার পেকুয়ায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ঘর পেল ১০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার চৌফলদন্ডীতে নৌকা প্রত্যাশী মুজিব নিবার্চনী মাঠে ব্যস্তসময় কাটাচ্ছেন মহেশখালীতে বেলুনের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নিহত ১, আহত ১০ নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে বিজিবির ‘গুলিতে’ রোহিঙ্গা ইয়াবা কারবারি নিহতঃঅস্ত্রসহ ইয়াবা উদ্ধার ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জের সাথে হাই স্কুলের শিক্ষকদের সৌজন্য সাক্ষাত কক্সবাজারে তিন খাবার প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২টি লাশ উদ্ধার ইসলামাবাদে নির্মম খুনের শিকার মা-মেয়ের দাফন সম্পন্ন : মামলা প্রক্রিয়াধীন

ঈদগাঁওতে ব্যবসা প্রতিষ্টানে অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র নেই

এম আবু হেনা সাগর,ঈদগাঁও / ৮৬ বার
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও বাজারসহ বিভিন্ন উপ বাজারে অগ্নিনিবার্পক যন্ত্র ছাড়াই ব্যবসা বানিজ্য করে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্টানে অগ্নিদূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেতে নেই আগুন নির্বাপক যন্ত্রটি। ছোটবড় দুর্ঘটনা ঘটলে হঠাৎ কোন প্রতিকার ব্যবস্থা নেই।

জানা যায়, আইন না মেনে চালিয়ে যাচ্ছে ব্যবসা। ঝুঁকিপূর্ণ এ জ্বালানির যথাযথ নিরাপত্তার ব্যবস্থা রাখছেনা। ব্যবসা পরিচালনায় কাগজপত্রাধিও অধিকাংশই দোকানে নেই। আইনগত বাধ্যবাধকতা সম্পর্কে অবগত। তারপরও তদারকির অভাবে ঝূঁকি জেনে তারা সনদ ও অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ছাড়া ব্যবসা করে যাচ্ছে অনেকে।

ঈদগাঁওর মোরাপাড়ার সিলিন্ডার ব্যবসায়ীর মতে, তারই দোকানে অগ্নি নিবার্পক যন্ত্র নেই। সেটির কাজ কি ঐ ব্যবসায়ী জানেন না।

ঈদগাঁও বাজারে কয়েক ব্যবসায়ীক প্রতিষ্টানে অগ্নিনিবার্পক যন্ত্র থাকলেও অধিকাংশ দোকানে এটির দেখা মিলছেনা। আগুনের ক্ষেত্রে প্রথম ধাপে এটি যে কতই গুরুত্ব বহন করে,সেটির বিষয়ে তাদের হয়ত ভালভাবে জানা নেই।

দেখা যায়, বিস্ফোরক অধিদপ্তরের সনদ ছাড়াই স্থানভেদে বহুগ্যাস সিলিন্ডার দোকানে মজুদ করেছে ব্যবসায়ীরা। এসব দোকানে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের গ্যাস বোঝাই সিলিন্ডার বিক্রি হচ্ছে। গ্রামীন হাট বাজারের বিভিন্ন স্থানে হার্ডওয়্যার-সামগ্রী বিক্রেতা, সিমেন্ট এবং মনিহারি-সামগ্রীর দোকান, মুদির দোকানেও গ্যাস সিলিন্ডার বিক্রি হচ্ছে। সিলিন্ডার ব্যবসা জমে উঠছে। ঈদগাঁও বাজারসহ বিভিন্ন উপবাজারের গ্রামীন জনপদের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে বিকিকিনি করে যাচ্ছে হরদম।

সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ দেখার পরেও এসবের বিরুদ্বে অভিযান না করায় হতাশ হয়ে পড়েন মানুষ। ফায়ার সার্ভিস কতৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ করেন সচেতন এলাকাবাসী।

আমানত ইলেট্রনিকের স্বত্বাধিকারী আশীষ জানান, প্রত্যেক দোকানে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র থাকা কিন্তু জরুরী। অগ্নিকান্ডের মত দূর্ঘটনা ঘটলে ঐ যন্ত্রটি কাজে লাগতে পারে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর