Logo
শিরোনাম :
চাঁপাইনবাবগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গণে বিপুল পরিমাণ মাদক ধ্বংস স্বাধীনতার ৫০ বছর পর বাড়ি পাচ্ছেন উখিয়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা দুদু মিয়া চিরতরে বন্ধু সংগঠন উখিয়া উপজেলা শাখার শপথ গ্রহণ,সংবর্ধনা ও পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত চৌফলদন্ডীতে গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের আনুষ্টানিক উদ্বোধন উখিয়ায় ইয়াবা সিন্ডিকেট পিতা-পুত্রের সন্ত্রাসী হামলায় ৩ এনজিও কর্মকর্তা আহত শীতবস্ত্র বিতরন উপলক্ষে…… মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি ফাউন্ডেশনের প্রস্তুতি সভা উখিয়ায় সবজি বাজারে এখনো ফেরেনি স্বস্তি শিমুল ধর্মীয় পরিচয়ে গোপন করে মিথ্যা বিয়ের নাটক সাজিয়ে মুসলিম নারীকে ফাসিয়েছে সংবাদ সম্মেলনে নাজনীন পোকখালী যুবলীগের কাউন্সিলে আমজাদ সভাপতি, ইত্তেহাদ সম্পাদক নিবার্চিত কক্সবাজারে ট্রাভেলেটস অফ বাংলাদেশ’–ভ্রমণকন্যা সংগঠনের ৪র্থ বর্ষপূর্তি উদযাপন

মুক্তি চাইলেন ধর্ষিতা, কারাফটকে বিয়ের নির্দেশ

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি / ৬৯ বার
আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০

জামিনে মুক্তি পেলে ভিকটিমকে বিয়ে করবেন- একথা বলে ধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত কারাবন্দি আসামি হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেছেন। তবে হাইকোর্ট ওই আসামিকে জামিন দেননি। আদালত আসামি ও ভিকটিমের মধ্যে কারা ফটকেই বিয়ের আয়োজন করতে রাজশাহী কারাগারের তত্বাবধায়কের প্রতি নির্দেশ দিয়েছেন। এই বিয়ের পর সে বিষয়ে ৩০ দিনের মধ্যে লিখিতভাবে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। আদালত উভয়পক্ষের সম্মতিতে এ আদেশ দেন। ভিকটিমের পক্ষে আদালতে জামিন আবেদন দাখিল করেন অ্যাডভোকেট এস এম শাহেদ চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন বাপ্পী।

জানা যায়, রাজশাহীর গোদাগাড়ি উপজেলার সিতানাথ খালকোর ছেলে দিলীপ খালকোর সঙ্গে তার খালাতো বোনের (ভিকটিম) মধ্যে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল। এরই সূত্র ধরে ভিকটিমকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার সঙ্গে ২০১১ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি দৈহিক মেলামেশা করে দিলীপ খালকো। এতে ভিকটিম গর্ভবতী হয়ে পড়ে। কিন্তু এরপর থেকে দিলীপ খালকো আর বিয়ে করতে রাজি হয়নি। এ নিয়ে সালিশ করা নিয়ে সময়ক্ষেপন করা হয়। শেষ পর্যন্ত সালিশ বৈঠক না হওয়ায় ভিকটিম ওইবছরের ২৩ অক্টোবর স্থানীয় ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে হাজির হয়ে তার পেগনেনসি পরীক্ষা করে। এরপর ২৫ অক্টোবর গোদাগাড়ি থানায় হাজির হয়ে দিলীপ খালকোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করে। এ মামলায় আসামির বিরুদ্ধে ২০১২ সালের ২৯ জানুয়ারি রাজশাহীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ গঠন করা হয়। এরপর বিচার শেষে ওইবছরের ১২ জুন এক রায়ে দিলীপ খালকোকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত। রায়ে বলা হয়, যখন ভিকটিম ধর্ষণের শিকার হন তখন তার বয়স ছিল ১৪ বছর।

২০১২ সালের রায়ের পর থেকে দিলীপ কারাবন্দি। এ অবস্থায় দিলীপ হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেন। বৃহস্পতিবার এ আবেদনের ওপর শুনানিকালে তার আইনজীবী জানান, ভিকটিম এখানে আছে। তারা বিয়ে করতে সম্মত। জামিন পেলে তাদের মধ্যে বিয়ে হবে। এ অবস্থায় আদালত কারাফটকে বিয়ের আয়োজন করতে কারা তত্ত্বাবধায়ককে নির্দেশ দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর