Logo

ফ্রান্সে নবীর অবমাননা’ নিয়ে টেকনাফ হোয়াইক্যংয়ের ইসলামপন্থীদের ব্যাপক বিক্ষোভ মিছিল

ওমর ফারুক টেকনাফ: / ৮১ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০

ফ্রান্সে ইসলাম এবং নবীর কার্টুন নিয়ে প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রঁর সাম্প্রতিক কিছু বক্তব্যের প্রতিবাদে টেকনাফে হোয়াইক্যং নয়াপাড়া আজ জুমার নামাজের পর ব্যাপক মিছিল ও সমাবেশ করেছে ইসলামপন্থী অনেকগুলো সংগঠন।

নয়াপাড়া বটতলী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রাঙ্গণ থেকে শুরু করে নয়াপাড়া,ঝিমংখালী,মিনাবাজার,ও কানজরপাড়া এলাকায় এসব কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে হাজার হাজার মানুষ।

মিছিল ও সমাবেশগুলোতে ঢাকা থেকে ফরাসি দূতাবাস সরিয়ে দেয়া এবং ফরাসী পণ্য বর্জনের আহ্বানের পাশাপাশি বাংলাদেশ সরকার ও মুসলিম বিশ্বকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আরও সোচ্চার হওয়ার আহবান জানানো হয়েছে।

বটতলী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জুমার নামাজ শেষ হওয়ার পরপরই শুরু হয় একের পর এক মিছিল। মিছিলকারীদের কারও হাতে প্ল্যাকার্ড কারও হাতে ব্যানার, আবার কারও মাথায় ছিলো শ্লোগান সম্বলিত কাপড়।

একটির পর একটি মিছিলে লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে নয়াপাড়া দক্ষিণ মাতা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ থেকে ঝিমংখালী হয়ে মিনাবাজার পর্যন্ত বিশাল এলাকাজুড়ে। আবার কোনো কোনো সংগঠন রাস্তায় অস্থায়ী মঞ্চ বানিয়ে জমায়েত করেছে ওই সড়কের বিভিন্ন প্রান্তে। মিছিলকারীরা বলছিলেন ইসলামের নবীর অবমাননা তারা কোনোভাবেই মেনে নিতে রাজি নন।

নয়াপাড়া ইসলামী যুব কল্যাণ পরিষদের সভাপতি মাহবুবর রহমান বলেন যারা নবীর অপমান করেছে তাদের অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে মুসলিমদের কাছে।প্রয়োজনে আমরা শহীদ হবো, শেষ রক্ত পর্যন্ত দিতে রাজি আছি, তবু নবীর অসম্মান মানবো না।

তারা বলেছেন তাদের দাবি আসলেই একটিই আর তা হলো ”নবী বা ইসলাম ধর্ম”র যিনি ”অবমাননা” করেছেন তাকে অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে।

ফ্রান্সে ইসলাম এবং নবীর কার্টুন নিয়ে ফরাসী প্রেসিডেন্ট এর সাম্প্রতিক কিছু বক্তব্যের প্রতিবাদে গত কয়েকদিন ধরেই ধারাবাহিক নানা কর্মসূচি পালন করছে বাংলাদেশের ইসলাম প্রিয় তাওহীদি জনতা।

নয়াপাড়া ইসলামী যুব কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা মোহাম্মদ ইব্রাহিম খলিল বলেন ফ্রান্সকে আমরা জানিয়ে দিতে চায় মুসলমানেরা হল বদর,খন্দকে বিজয় ছিনিয়ে আনা জাতি, হযরত আবুবকর, উমর, ওসমান ও আলী (রা) এর খেলাফতের অনুসারী। খালিদ বিন ওয়ালিদের উত্তরসূরী। মুসলমানরা যুদ্ধ ও ভালবাসা দিয়ে উসমানীয় খেলাফত প্রতিষ্ঠা করেছিল। তারিক বিন যিয়াদের রনাঙ্গনের সৈনিক। আজ ফ্রান্স মুসলমানদের ইতিহাস ভুলে গিয়েছে। মুসলমানদের হৃদয়ে মুহাম্মদ স এর প্রতি আকাশসম ভালবাসা রয়েছে ফ্রান্স সে কথা ভাল করে জানে না। তাদেরকে আমরা পরিস্কার ভাষায় বলে দিতে চায়, একজন মুসলমানও জীবিত থাকতে এবং মুসলমানদের শরীরে একবিন্দু রক্ত থাকতে পৃথিবীর বুকে কোন ইহুদী খৃস্টানকে ও কোন আল্লাহর দুষমনকে রাসুল স. এর অপমান ও অবমাননা করতে দেয়া হবেনা।

সমাবেশে প্রধান অতিথি আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মাওলানা নুর আহমদ আনোয়ারী বলেন, আসুন সব মুসলিম দেশ এক হয়ে ফ্রান্সের বিচার করি। ফ্রান্সের সব পণ্য বর্জন করি। আমরা নবীর সম্মানের স্বার্থে জীবন উৎসর্গ করতে রাজি আছি।”

মুসলমানদের প্রধান শত্রু হচ্ছে ইহুদি খৃস্টান। যেকোন সময় মসলমানদের সাজানো সংসার ভেঙ্গে দেয়ার জন্য উৎপেতে বসে থাকে। তারা আফগানিস্থান, ইরাক,সিরিয়া, নাইজেরিয়া, আলজেরিয়া ও সুদান সহ সারা বিশ্বে মুসলমানদেরকে কিভাবে হত্যা করবে ও মুসলমানদের কিভাবে নির্যাতন করবে সেই চিন্তা নিয়ে তারা দিনরাত কাটায়। ইহুদী-খৃস্টানরা কোন মুসলিম দেশ হতে সুষ্ঠুভাবে ফিরতে পারে নাই। তাই বিভিন্ন দেশে তারা দিশেহারা হয়ে রাসুল স. এর অবমাননার কাজে নেমেছে। কিন্তু তাদের মনে রাখতে হবে দিনশেষে মুহাম্মদ স. এরই বিজয় নিশ্চত হয় এবং কাফেরদের পরাজয় হয়।
তবে সমাবেশ থেকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আরও সোচ্চার ভূমিকা পালনের জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতিও আহবান জানান ১নং হোয়াইক্যং মডেল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মাওলানা নুর আহমদ আনোয়ারী।

উক্ত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ১নং হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মাওলানা নুর আহমদ আনোয়ারী
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,অধ্যাপক মাওলানা নুরুল বশর ছিদ্দিকী,প্রফেসর নুরুল আমিন,মাওলানা জয়নাল আবেদিন,মুফতি আলতাফ হোছাইন,মাওলানা আবুল বশর ছিদ্দিকী,হাঃ মাওলানা আব্দুল্লাহ, হাঃমোহাম্মদ আলম,মাওলানা নুরুল হোছাইন নয়াপাড়া ইসলামী যুব কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা ইব্রাহিম খলিল। নয়াপাড়া ইসলামী যুব কল্যাণ পরিষদের সভাপতি মাহবুবুর রহমান। উক্ত সংগঠনের সাবেক সভাপতি ফরিদুল আলম মুন্সি,সাংবাদিক জাহেদ হোসেন, হাফেজ মাওলানা ইব্রাহিম, উক্ত সংগঠনের সিনিয়র সদস্য প্রকৌশলী মোঃ ইউসুফ,আব্দু রহিম,মোহাম্মদ হোসাইন,ছাত্র নেতা ফরহাদ মাহমুদ প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর