Logo
শিরোনাম :
মহেশখালীর কালারমার ছড়ায় ঘর দেয়ার নামে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রতারক চক্র রামুতে RAB এর সাথে বন্দুকযুদ্ধে এক ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত চকরিয়ায় অবৈধ বালু উত্তোলনকালে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান: ড্রেজারসহ ৮টি মেশিন ধ্বংস,২৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় মহেশখালী থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে অপহৃত কিশোর’কে ৫ মাস পর উদ্ধার। ইসলামপুরে মালবাহী ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৬  কক্সবাজারে সেই তিন পুলিশ সদস্য সাময়িক বরখাস্তঃ ২ দিনের রিমান্ডে রামুর গর্জনিয়া মাছ বাজার রাস্তার ওপর পঁচা পানির দুর্গন্ধ বাদাম-চকলেটের প্যাকেটে ১৭ হাজার ইয়াবা, গ্রেপ্তার ১ জনগণের প্রসংশায় ভাসছেন মহেশখালী থানার (ওসি) আবদুল হাই চাঁপাই নবাবগঞ্জে ১০ দফা দাবীতে নিরাপদ সড়ক চেয়ে মানববন্ধান

কথিত স্বামীর ফোন পেয়ে গ্রামে গিয়ে ধর্ষণের শিকার তরুণী

অনলাইন ডেস্কঃ / ৮২ বার
আপডেট সময় : বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

কথিত স্বামীর ফোন পেয়ে তার গ্রামে গিয়ে এক তরুণী ধর্ষণ ও মারধরের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার রাতভর কথিত স্বামী মাহিদুল ও তার খালাতো ভাই আবদুল খালেক গ্রামের জনশূন্য একটি বাড়িতে তার ওপর এই নির্যাতন চালান। গতকাল ভোরের দিকে এলাকায় ঘটনা জানাজানি হয়। শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার বাঘবেড় গ্রামের আখড়াপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনা আপসে মীমাংসার চেষ্টা করায় পুলিশ ইব্রাহিম ও মাবর আলী নামে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে। মাবর আলী অভিযুক্ত মাহিদুলের বাবা এবং ইব্রাহিম অপর অভিযুক্ত মালেকের বাবা।

এ ছাড়া খুলনার পাইকগাছায় মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সুপার মো. হাবিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কুমিল্লার মুরাদনগরে তিন শিশুকে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় অভিযুক্ত মোশারফ চৌধুরী নামের এক ব্যক্তিকে খুঁজছে পুলিশ। বগুড়ায় ধর্ষণ মামলায় অসহযোগিতার অভিযোগে ধুনট থানার এক পুলিশ কর্মকর্তাকে ক্লোজ করা হয়েছে। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নালিতাবাড়ী : শেরপুর সদর উপজেলার চান্দেরনগর গ্রামের এক তরুণী গাজীপুরের একটি গার্মেন্টে কাজ করেন। সেই সুবাদে পরিচয় হয় নালিতাবাড়ী উপজেলার বাঘবেড় আখড়াপাড়া গ্রামের মাহাবুর রহমানের ছেলে মাহিদুল ইসলামের সঙ্গে। পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রায় দেড় বছর আগে দুজন বিয়ে করে সংসার শুরু করে। তবে সেই বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়নি। সম্প্রতি মাহিদুল গাজীপুর থেকে বাড়ি আসে। গত মঙ্গলবার মাহিদুলের ফোন পেয়ে বাঘবেড় গ্রামে যান ওই তরুণী। ওই দিন রাতে তাকে নিয়ে ভগ্নিপতি রহুল আমীন বাবুর পতিত বাড়িতে ওঠে মাহিদুল। জনশূন্য সেই বাড়িতে তরুণী রাতভর ধর্ষণের শিকার হন মাহিদুল ও তার খালাতো ভাই একই গ্রামের আবদুল মালেক কর্তৃক। আপত্তি করায় দুজন মিলে তরুণীকে বেধড়ক মারধরও করে। এতে গতকাল ভোরের দিকে ঘটনা জানাজানি হয়। স্থানীয়রা ওই তরুণীকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে পুলিশে যোগাযোগ করতে পরামর্শ দেন। সেই মতে নির্যাতিতা এলাকা থেকে আসতে চাইলে মালেকের পিতা ইব্রাহিম তাকে তার দোকানে আটকে আপসের কথা বলে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালায়। এমতাবস্থায় খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নির্যাতিতাকে উদ্ধার ও ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাকারী ইব্রাহিম ও মাবর আলীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তবে পলাতক রয়েছে অভিযুক্ত মাহিদুল ও মালেক।

নালিতাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বছির আহমেদ বাদল জানান, ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শেরপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে আইনি

পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

বগুড়া : ধর্ষণ মামলার বাদীকে অসহযোগিতার অভিযোগে ধুনট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আহসানুল হককে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে গতকাল সকালে তাকে থানা থেকে ক্লোজ করা হয়। উপজেলার দেউড়িয়া গ্রামের এক কৃষকের মেয়ে গোপালনগর উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। তাকে একই গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে মাসুদ রানা স্থানীয় ইউপি সদস্য ফজলুল হক বাবুর সহযোগিতায় ১৬ জুলাই গ্রামের রাস্তা থেকে অপহরণ করে। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা ১২ আগস্ট ধুনট থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় মাসুদ ও ফজলুল হক ছাড়া আরও পাঁচজনকে আসামি করা হয়। ২৫ সেপ্টেম্বর ছাত্রীকে সিরাজগঞ্জের চান্দাইকোনা এলাকা থেকে উদ্ধার করেন স্বজনরা। এর পর কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়। এতে তাকে ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া যায়।

বাদীর অভিযোগ, এ ঘটনায় ধুনট থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ অসহযোগিতা করে। তবে মামলা নেয় অপহরণের ২৬ দিন পর। তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে ইউপি সদস্য ফজলুল হকের নাম বলতে বারণ করেছেন। এ কথায় রাজি না হওয়ায় পরে থানায় গেলে ওই কর্মকর্তা আহসানুল হক আমাদের অসহযোগিতা ও গালাগাল করেছেন।

তবে এসআই আহসানুল হক বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ মিথ্যা। বাদী টাকা নিয়ে মামলা মীমাংসা করে এখন পুলিশের বিরুদ্ধে বদনাম করছেন।

পাইকগাছা : খুলনার পাইকগাছায় চতুর্থ শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মাদ্রাসা সুপার মো. হাবিবুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটে উপজেলার লস্কর-পাইকগাছা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায়। গ্রেপ্তারকৃত হাবিবুর রহমান কয়রা উপজেলার ক্ষিরোল গ্রামের হাকিম সরদারের ছেলে। গত ৩০ নভেম্বর সকাল ৭টার দিকে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় ভিকটিমের নানি থানায় মামলা দায়ের করেন। এর পরই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওসি মো. এজাজ শফী জানান, ধর্ষণের আলামত জব্দ ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য মেয়েটিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে আদালতে ১৬১ ধারার জবানবন্দিতে হাবিবুর রহমান ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেন।

মুরাদনগর : কুমিল্লার মুরাদনগরে প্রলোভন দেখিয়ে ৩ শিশুকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত কামাল্লা গ্রামের মৃত খুরশিদ চৌধুরীর ছেলে মোশারফ চৌধুরী পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় গতকাল সন্ধ্যায় থানায় মামলা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মোশারফ চৌধুরী গত ২৭, ২৮ ও ২৯ নভেম্বর পর পর ৩ দিন প্রতিবেশী ৩ শিশুকন্যাকে বিভিন্ন সময়ে প্রলোভন দিয়ে বৈঠক ঘরে নিয়ে যান এবং তাদের বিভিন্নভাবে যৌন নিপীড়ন করেন। তিন শিশুর পরিবার বুধবার সন্ধ্যায় মুরাদনগর থানায় মোশারফ চৌধুরীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে। মুরাদনগর থানার ওসি সাদেকুর রহমান বলেন, যৌন নিপীড়নের ঘটনায় মামলা হয়েছে। মোশারফ চৌধুরীকে পুলিশ খুঁজছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর