Logo

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সরকারি নির্দেশনার পরও কমেনি আলুর দাম

মোঃ মেশবাহুল হক চাঁপাই নবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি / ১৮৬ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০

পেঁয়াজের পর এবার আলু নিয়ে তেলেসমাতি। ভোক্তা পর্যায়ে সর্বোচ্চ ৩০ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রির নির্দেশ প্রদান করে সরকার। এ নির্দেশনাকে তোয়াক্কা করছেন না ব্যবসায়ীরা। হিমাগার ও পাইকারি পর্যায়েও আলুর দর নির্ধারণ করে দেয়া হলেও কেউ মানছেন না। দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে অভিযান চালানো জরুরী হয়ে পড়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই।
জানা গেছে, সরকার আলুর দাম নির্ধারণ করে দিলেও চাঁপাইনবাবগঞ্জে তা কার্যকর হচ্ছে না। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, দেশে পর্যাপ্ত পরিমাণ আলুর মজুদ থাকায় খুচরা পর্যায়ে প্রতি কেজি আলু ৩০ টাকা, পাইকারি পর্যায়ে ২৫ টাকা এবং হিমাগার পর্যায়ে কেজি ২৩ টাকা দরে বিক্রি করতে হবে।
তবে বিভিন্ন ভোগ্যপণ্যের পাশাপাশি এবছর আলু রেকর্ড দামে বিক্রি হওয়ায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন এ জেলার স্বল্প আয়ের মানুষ। গত এক মাস আগে বাজারে যে আলু ১৫ থেকে ২০ টাকায় বিক্রি হতো, মাস যেতে না যেতে সেই আলুর দাম বেড়ে এখন ৪৩-৪৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এদিকে বিভিন্ন বাজার-হাটে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ দপ্তর অভিযান চালালে খুচরা ব্যবসায়ীরা ৩০ টাকা দরে বিক্রি করে, তারা চলে যাবার পর আবার আগের দামে বিক্রি করা শুরু করে। তহাবাজার, নিউ মার্কেট সংলগ্ন কাঁচাবাজার, হুজরাপুর মন্ডল মার্কেট বটতলাহাট নতুনহাট কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, আগের মতো চড়া দামেই আলু বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়।
অথচ হিমাগার থেকে আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৩৮ টাকা। রান্নার অপরিহার্য অংশ হচ্ছে আলু, আর আলুকে নিয়ে কারসাজি করছে কতিপয় ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট। সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে বিভিন্ন পণ্যের পাশাপাশি আলুর দামও বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে মনে করছেন অনেকেই। এখনই এদের লাগাম টেনে ধরা উচিত।
বাজার করতে আসা রফিকুল আলম ও আজফার হোসেন নামে ক্রেতারা জানান, করোনাকে পুঁজি করে এ সুযোগ নিয়েছে অসাধু চক্র। বিনা কারণেই আলুর দাম বাড়িয়ে দিয়েছে তারা। এ অশুভ চক্র চাল, পেঁয়াজের সিন্ডিকেট করে দাম বাড়িয়েছে। এবার অন্যান্য সব্জির পাশাপাশি আলু নিয়ে কারসাজি শুরু করেছে। নিয়মিত বাজার মনিটরিং করলে অসাধু চক্ররা আর এ সুযোগ নিতে পারবে না বলে মনে করছেন অনেকেই। জেলা শহরের তহাবাজারের ব্যবসায়ী মো. আজিম বলেন, হিমাগার থেকে আলু সরবরাহ বন্ধ করে দেয়ায় খুচরা বাজারে এর প্রভাব পড়েছে।
ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জের সহকারি পরিচালক জহিরুল ইসলাম জানান, বিভিন্ন বাজারে আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর অভিযান চালাচ্ছে। বাজার মূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।
এদিকে, জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ জানান, বাজারে আলুর দাম সহনীয় পর্যায়ে আনতে মনিটরিং এর জন্য আজ থেকে ভ্রাম্যমান আদালত কাজ শুরু করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর